শিরোনাম
পাবনায় পানিতে লাফ দিতেই হারিয়ে গেল দুই শিশু ৪ টির দু,‘টি ফেরীই নষ্ট,কাজিরহাট ঘাটে দীর্ঘ যানজট করোনায় পাবনা জেলা শ্রমিক দল সভাপতির মৃত্যু ময়মনসিংহে ডিপিএড ২০২০-২০২১ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীদের বকেয়া প্রশিক্ষণের ভাতার দাবিতে মানববন্ধন পাবনায় পাঁছ লক্ষাধিক টাকার ইয়াবাসহ ব্যবসায়ী আটক আষাঢ়ের শুরুতেই পাবনায় ভারী বর্ষণের রেকর্ড! পাবনায় অস্ত্রের মহড়া: আ.লীগ নেতাদের অস্ত্রের লাইসেন্স বাতিল ঈশ্বরদী-রূপপুরের উন্নয়ন কাজ পরিদর্শনে অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী পাবনার আ.লীগ নেতাদের অস্ত্রের মহড়া : অস্ত্রের লাইসেন্স বাতিলের সুপারিশ পুলিশের পাবিপ্রবিতে এক বছর পূর্বের তারিখে ফরম পুরনের বিজ্ঞপ্তি
বুধবার, ২৩ জুন ২০২১, ০৫:৫০ অপরাহ্ন

বেধোরক মারপিটের অভিযোগ আ.লীগ নেতার পুত্রের বিরুদ্ধে

অনলাইন ডেস্ক / ৫০৪ শেয়ার
প্রকাশ : শুক্রবার, ২৮ মে, ২০২১

পাবনায় এক যুবককে বেধোরক মারপিটের অভিযোগ উঠেছে সদর উপজেলার মালিগাছা ইউনিয়নের বাসিন্দা সাবেক যুবলীগ নেতা ও বর্তমান বাহারাইন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক হায়াত উল্লাহ মল্লিকের ছেলে জনি মল্লিকের বিরুদ্ধে।

মালিগাছা ইউনিয়নের রুপপুর গ্রামের বাসিন্দা মহসীন হোসেনের ছেলে সাগরকে বেধোরক মারপিটে হাত পা ভেঙ্গে পঙ্গু করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে জনি মল্লিক ও তার সন্ত্রাসী বাহিনীর বিরুদ্ধে।

সাগর একজন ডিপ্লোমা ট্রেকটাইল ইঞ্জিনিয়ার চাকুরির জন্য দ্বারে দ্বারে ঘুরেও ভাগ্যে না মেলায় বিভিন্ন ব্যবসা করে মাতা, পিতা, স্ত্রী, সন্তান নিয়ে দিন আতিপাত করে, এতেও প্রভাবশালী কুচক্রকারীরা মেনে নিতে পারে নাই, তাই আবারও দূবৃত্তদের হামলায় পঙ্গুত্ব বরণ করতে হলো, এঘটনায় গ্রামবাসী চুপ করে থাকছে না এর সুস্থ তদন্ত সাপেক্ষে আইনানুগত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

বিশেষ সুত্রে জানা যায় পাবনা সদর থানাধীন মালিগাছা ইউনিয়নের রুপপুর গ্রামের মহসীন হোসেনের ছেলে সাগর (৩১) এর শংকরপুর মোড়ে হাজী ভ্যারাইটিজ ষ্টোর নামের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। গত ১৯ মে রাত ৯ টার সময় দাপুনিয়া বাজার হইতে দোকানের মালামাল ক্রয় করে বাড়ি ফেরার সময় শ্রীকৃষ্ণপুর পাকা রাস্তার উপর পূর্ব শত্রুতার জের ধরে ৮/১০ জন দূবৃত্ত আগ্নেয় অস্ত্র, চাপাতি, লোহার রড, জিআই পাইপ, বাঁঁশের লাঠি, কাঠের বাটাম ইত্যাদী অস্ত্র-শস্ত্রে সজ্জিত হইয়া তার পথরোধ করে এবং তাকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়া জোরপূর্বক শংকরপুর বিলপাড়া জনৈক শুভ’র প্রজেক্টের পার্শ্বে নির্জন স্থানে নিয়ে দূবৃত্তদের হাতে থাকা লোহার রড, জিআই পাইপ, বাঁঁশের লাঠি, কাঠের বাটাম ইত্যাদী দিয়ে উপযুক্তপরি বেদম প্রহারে তার ডান হাত ও ডান পা ভেঙ্গে ফেলে এবং শরিরের বিভিন্ন স্থানে ফোলা, ফাঁটা, ছিলা জখম সৃষ্টি হয়। আহত সাগর ইউএনএস প্রতিবেদককে জানান এসময় জনির সন্ত্রাসী বাহিনীরা পাবনা সদর থানার ওসি তদন্ত মনির হোসেনকে ডেকে তার হাতে তুলে দিতে চাইলে ওসি তদন্ত আহত অবস্থায়দেখে নিতে অপারগতা প্রকাশ করে পরে আমার পরিবারের লোকজন ও গ্রামের লোকজন খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সাগর আরো জানান বার বার আমাকে মিথ্যা হয়রানিমূলক মামলা দিয়ে ক্ষান্ত হয় নাই প্রভাবশালী কুচক্র মহল এবার আমাকে হত্যার উদ্দেশ্যে হামলা করা হয়েছিল আমার পরিবার ও গ্রামবাসী আমাকে উদ্ধার না করলে দূবৃত্তরা মেরেই ফেলত। এ ঘটনা জানাজানি হওয়ার পর থেকে গ্রামবাসী সাগরকে দেখার জন্য তার বাড়িতে ভীড় জমায় ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন এক প্রকার প্রতিবাদ করে বলেন কুচক্রকারীদের মিথ্যা মামলা, হামলা, সন্ত্রাসী কর্মকান্ড আর মেনে নেওয়া যায় না এর সুস্থ, সঠিক তদন্তের মাধ্যমে আইনানুগত ব্যবস্থা গ্রহন করা উচিৎ সংশ্লিষ্ট কতৃপক্ষের। সাধারণ গ্রামবাসী আরো জানান সব সময় আতংগ্রস্থ থাকতে হয় এই সন্ত্রাসী, কুচক্রকারীদের মিথ্যা মামলা, হামলা ও হয়রানির ভয়ে। সাগরের হামলার ঘটনায় সাগরের মাতা মোছা. মমতাজ খাতুন বাদী হয়ে একই গ্রামের জনি মল্লিক, রাজু মল্লিক, আল কবির রকিসহ ৬ জনকে আসামী করে পাবনা সদর থানায় একটি অভিযোগ পত্র পেশ করেছেন বলে জানা গেছে। গত সোমবার পাবনা থানার এস আই ডালিম ঘটাস্থল পরিদর্শন করেন। সাগরের মাতা মমতাজ বেগম জানান ২০১৮ সালে শংকরপুরের বাহারাইন প্রবাসী হায়াত উল্লাহ মল্লিকের নির্মানাধীন বাড়িতে ডাকাতি সংঘটিত হয় বলে উল্লেখিত মামলায় আমার আমার মেঝ ছেলে ডিপ্লোমা সিভিল ইঞ্জিনিয়ার শাকিল ও তৃতীয় ছেলে ডিপ্লোমা ট্রেকটাইল ইঞ্জিনিয়া সাগর সহ ৬ জনকে আসামী করে মামলা করেন। ২০ জানুয়ারী ২০১৯ সালে শংকরপুর বাজারে হায়াৎ উল্লাহ মল্লিকের ছেলে জনি মল্লিক শীর্তাতদের মাঝে কম্বল বিতরণকে কেন্দ্র করে রুপপুর গ্রামের সোহাগের সাথে বাকবিতন্ডা সৃষ্টি হয় এ নিয়ে সন্ধ্যায় হামলায় ৩ জন গুরুত্বর রক্তাত্ব অবস্থায় আহতহয় এবং হাসপাতালে ভর্তি করে। ২ দিন পর মানষিক প্রতিবন্ধি নজরুল ইসলাম (৩৮) মারা যায়। এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী নার্গিস সুলতানা বাদী হয়ে থানায় মামলা করেন। আমার ছেলে সাগর এ বিষয়ে কিছুই না জানলেও তাকে পুলিশ দাপুনিয়া তার কর্মস্থল মাটির প্রজেক্ট থেকে গ্রেফতার করেন। এখন জামিনে আছে। তিনি আরো জানান নজরুল হত্যার প্রকৃত খুনি কারা তা এখন গ্রামবাসীর মুখে মুখে। নিরপেক্ষ তদন্ত করলেই প্রকৃত সত্য বেরিয়ে আসবে।

প্রভাবশালী কুচক্র মহল আমার সন্তানকে মিথ্যা মামলা দিয়েই কান্ত হয় নাই এবার চিরতরে মেরে ফেলার জন্য হামলা করে পঙ্গু করে দিয়েছে, তার ভবিষ্যত এখন অন্ধকার। তিনি আরো বলেন এ বিষয়ে মামলা না করার জন্য চাপ সৃষ্টি করছে প্রভাবশালী মহল।

স্থানীয়রা বলেন “জনি মল্লিক এলাকায় তার বন্ধু-বান্ধব নিয়ে উশৃঙ্খল পরিবেশে চলাফেরা করে এবং এলাকাবাসীদের ভয়-ভীতি প্রদর্শন করে। তার বাবা ক্ষমতাধর হওয়ায় এলাকাবাসীরা তাদের ভয়ে মুখ খুলতে পারে না।


এই বিভাগের আরও খবর
ব্রেকিং নিউজ
x
ব্রেকিং নিউজ
x