শিরোনাম
যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে গুলিতে নিহত ৬ বাংলাদেশীর দাফন সম্পন্ন ফরিদপুর পৌরসভার মেয়র কামরুজ্জামান মাজেদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ সেই মুন্নীর পাশে সুজানগর উপজেলা ছাত্রদলের আন্তরিক অবস্থান পাবনায় ২০৫ পিচ অবৈধ নেশাজাতীয় মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার চাটমোহরে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ পাবনা ফ্রেন্ডস অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি রিয়াদ হোসেন বাবুর জন্মদিন মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় দ্বিতীয় তানভিন আহমেদ ঈশ্বরদীতে করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ প্রয়োগ শুরু আটঘরিয়ায় বিআরডিবি’র নতুন ভবনের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদী-আটঘড়িয়ার সাবেক এমপি আব্দুল বারী সরদার আর নেই
শনিবার, ১০ এপ্রিল ২০২১, ০৫:১৮ অপরাহ্ন

জনপ্রিয় কয়েকটি ফটো এডিটিং অ্যাপ

অনলাইন ডেস্ক / ২৭ শেয়ার
প্রকাশ : বুধবার, ৭ এপ্রিল, ২০২১

একটি ভাল মানের ছবি তোলার জন্য পছন্দ অবশ্যই ডিএসএলআর। তবে শুধুমাত্র ডিএসএলআর দিয়েই যে ভালো ছবি উঠে তা কিন্তু নয়। এখনকার স্মার্টফোনের ক্যামেরা গুলো কিন্তু ডিএসএলআর চেয়ে কম নয়!

স্মার্টফোন দিয়ে ছবি তোলার পর ফটো এডিটিং অ্যাপের মাধ্যমে ছবিকে আরো সুন্দর করা যায়। এরকম ৫টি ফটো এডিটিং অ্যাপের কথাই আজ আপনাকে জানাবো-

১. স্ন্যাপসিড (Snapseed) :

ফটো এডিট করার জন্য জনপ্রিয় অ্যাপগুলোর মধ্যে স্ন্যাপসিড অন্যতম। অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস অপারেটিং সিস্টেমে এই অ্যাপ ব্যবহার করা যায়। এখানে আপনি ছবিতে খুব সহজেই যেমন বিভিন্ন ফিল্টারের ব্যবহার করতে পারবেন, তেমনি আবার কাস্টম টিউনিং, কারভিং, টোনাল কন্ট্রাস্ট, হোয়াইট ব্যালেন্সের মতো ফিচার গুলো ইচ্ছানুসারে ব্যবহার করে ছবিকে সুন্দর করে তুলতে পারবেন।

২. ভিএসসিও (VSCO) :

ভিএসসিও হল আরেকটি ফটো এডিটিং অ্যাপ যা অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস ব্যবহারকারীরা ব্যবহার করতে পারবেন। এখানে আপনি প্রিসেট ফিল্টারের মতো ফিচার সহ ফটোতে থাকা খুঁতগুলো সংশোধন করতে ও এডিটিং ফিচারগুলোর মধ্যে সামঞ্জস্য আনার জন্য একাধিক বিকল্প পাবেন। এমনকি এডিটিং এর ক্ষেত্রে ছবির মান যাতে নষ্ট না হয় তার জন্য আপনি ডিভাইস থেকে সরাসরি RAW ফাইলগুলোও ইমপোর্ট করতে পারবেন।

৩. প্রিজমা (Prisma) :

কয়েক বছর আগে ব্যবহারকারীদের মধ্যে অতি মাত্রায় জনপ্রিয় হয়ে ওঠা এই অ্যাপটি পুনরায় ফিরে এসেছে। অ্যাপটি অন্যান্য অ্যাপের তুলনায় আলাদা হওয়ার কারণ এটি একটি সাধারণ ছবিকে স্কেচ বা পেইন্টিং –এ পরিণত করাতে সক্ষম। সেক্ষেত্রে আপনি অনেক গুলো চমৎকার ফটো ফিল্টারও পেয়ে যাবেন অ্যাপটিতে।

৪. অ্যাডোব ফটোশপ লাইটরুম (Adobe Photoshop Lightroom) :

ফটোগ্রাফারদের মধ্যে অধিক ব্যবহৃত অ্যাপ গুলোর মধ্যে একটি হল অ্যাডোব ফটোশপ লাইটরুম। সাধারণ মানুষের জন্য এই অ্যাপ্লিক্যাশনটি ব্যবহার করা কঠিন হলেও এডিটিং –এ দক্ষতাসম্পন্ন ব্যক্তির কাছে এই অ্যাপটি বিশেষ কার্যকারী হবে। ফটো এডিটিং এর জন্য বহু বিকল্পের সমন্বয়ে তৈরি এই অ্যাপটিতে আপনি পেয়ে যাবেন ছবির কালার ও ডেটেইলিং পরিবর্তনের জন্য কন্ট্রাস্ট, স্যাডো, লেভেল, ফিল্টারের মতো প্রয়োজনীয় ফিচারগুলো। আর আপনার যদি অ্যাডোব ক্রিয়েটিভ ক্লাউড সাবস্ক্রিপশন থাকে তাহলে, RAW ছবিগুলো ইমপোর্ট করার সুবিধাসহ আরও কিছু এডিটিং বৈশিষ্ট্যও পেতে পারেন।

৫. পিক্সলার (Pixlr) :

অনায়াসে ছবি এডিট করে ফেলার জন্য পিক্সলার অ্যাপটি যথেষ্ট সাহায্য করবে অ্যান্ড্রয়েড এবং আইওএস ব্যবহারকারীদের। এই ফটো এডিটিং অ্যাপটি সম্পূর্ণ বিনামূল্যে ব্যবহার করা যায়। নৈমিত্তিক ব্যবহারকারীদের কথা মাথায় রেখে অ্যাপটি তৈরি করার কারণে এটি ব্যবহার করার পদ্ধতি খুবই সহজ। অতিরিক্ত পরিশ্রম না করেই আপনি এখানে তৈরি করে ফেলতে পারবেন সহজ, সরল তথাপি আধুনিক স্টাইলের সুনির্মিত অ্যানিমেশন। একটি প্রিমিয়াম সংস্করণ রয়েছে তবে বেশিরভাগ ব্যবহারকারীরা বিনামূল্যে পাওয়া সংস্করটিতেই কাজ করতে পছন্দ করেন।


এই বিভাগের আরও খবর
ব্রেকিং নিউজ
x
ব্রেকিং নিউজ
x