শিরোনাম
যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে গুলিতে নিহত ৬ বাংলাদেশীর দাফন সম্পন্ন ফরিদপুর পৌরসভার মেয়র কামরুজ্জামান মাজেদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ সেই মুন্নীর পাশে সুজানগর উপজেলা ছাত্রদলের আন্তরিক অবস্থান পাবনায় ২০৫ পিচ অবৈধ নেশাজাতীয় মাদকদ্রব্য ইয়াবা ট্যাবলেটসহ ০১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার চাটমোহরে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সরকারি গাছ কাটার অভিযোগ পাবনা ফ্রেন্ডস অ্যাসোসিয়েশনের সেক্রেটারি রিয়াদ হোসেন বাবুর জন্মদিন মেডিকেল ভর্তি পরীক্ষায় দ্বিতীয় তানভিন আহমেদ ঈশ্বরদীতে করোনা টিকার দ্বিতীয় ডোজ প্রয়োগ শুরু আটঘরিয়ায় বিআরডিবি’র নতুন ভবনের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন ও মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত ঈশ্বরদী-আটঘড়িয়ার সাবেক এমপি আব্দুল বারী সরদার আর নেই
শনিবার, ১০ এপ্রিল ২০২১, ০৬:২৫ অপরাহ্ন

যুক্তরাষ্ট্রে ৬ জনকে গুলি ও কুপিয়ে হত্যা : পাবনায় স্বজনদের আহাজারী

অনলাইন ডেস্ক / ৯১ শেয়ার
প্রকাশ : মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল, ২০২১

জেলা প্রতিনিধি, পাবনা: যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে বাংলাদেশের একই পরিবারের ৬ জনকে গুলি করে হত্যার ঘটনা ঘটেছে। তাদের সবার বাড়ি পাবনায়। এই খবর জানাজানি হলে নিহতের স্বজনদের মধ্যে শুরু হয় আহাজারি। গ্রামের বাড়িতে শোকের মাতম চলছে। নিস্তব্ধ নেমে আসে এলাকার মানুষের মধ্যে।

নিহতদের বাড়ি পাবনার শহরতলীর মনসুরাবাদ আবাসিক এলাকার আরিফপুরস্থ দোহারপাড়া এলাকায়।

সকাল থেকেই নিহতদের স্বজন ও বন্ধুবান্ধব পাড়া প্রতিবেশীরা পাবনার গ্রামের বাড়ীতে ভীড় জমায়। স্বজনরা কোন ভাবেই বিশ্বাস করতে পারছেনা এই লোমহর্ষক হৃদয়বিদারক ঘটনার। তবে নিহতদের পরিবার এবং আতœীয়রা সরকারের কাছে দাবী করেছেন অন্ততপক্ষে নিহতদের দাফন দেশের মাটিতে করার ব্যবস্থা করতে।

সোমবার (৫ এপ্রিল) দুপুরের দিকে অ্যালেন শহরের পাইন ব্লাফ ড্রাইভ এলাকার ১৫০০ নম্বর ব্লকের একটি বাড়ি থেকে একই পরিবারের ছয় সদস্যের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ।

নিহতরা হলেন- তৌহিদুল ইসলাম (৫৪), তার স্ত্রী আইরিন ইসলাম (৫৬), তৌহিদুল ইসলামের মা আলতাফুন নেসা (৭৭), দুই পুত্র তানভীর তৌহিদ (২১) ও ফারহান তৌহিদ (১৯) এবং কন্যা ফারবিন তৌহিদ (১৯)। ফারহান এবং ফারবিন জমজ ভাই-বোন ছিলেন।

দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে স্বপ্নের দেশ আমেরিকাতে স্বপরিবারে বসবাস করেন সিটি ব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্ট তৌহিদুর রহমান ওরফে স্যাম তৌহিদ। স্ত্রী মিসেস আইরিন ইসলাম নীলা তৌহিদ, তিন সন্তান তানভীর তাওহীদ, ফারবিন তাওহীদ এবং ফারহান তাওহীদ নিয়ে সুখের শান্তিতে বসবাস করছিলেন। তৌহিদের শাশুড়ি নীলার বৃদ্ধা মা আলতাফুন নেসাও তাদের সঙ্গে টেক্সাসে ছিলেন। গত শুক্রবার রাতে পাবনায় আলতাফুননেছার ছেলেদের সঙ্গে মোবাইলে কথা হয়। ১ এপ্রিল আলতাফুননেছার পাবনায় ফেরার কথা। করোনার কারণে সেই ফ্লাইট বাতিল হয়ে পরবর্তিতে ৭ এপ্রিল দেশে আসার দিন ঠিক হয়। কিন্তু গত শুক্র অথবা শনিবার রাতে তারা নৃশংসভাবে খুনের শিকার হন।

এদিকে হত্যা নাকি আত্মহত্যা, এটি নিয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ডালাসের কমিউনিটিতে নানা জল্পনা কল্পনা চলছে। সোমবার সকালে যুক্তরাষ্ট্রের টেক্সাসে ৬ বাংলাদেশির মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, পরিবারের দুই সন্তান অন্য সদস্যদের হত্যা করে নিজেরাও আত্মহত্যা করতে পারেন। তবে এখনও ঘটনার প্রকৃত কারণ জানা যায়নি। এ ঘটনায় কমিউনিটিতে চাঞ্চলের সৃষ্টি হয়েছে।

এদিকে নিহতের পরিবার সরকারের কাছে দাবী জানিয়েছে মৃতদের মরদেহ দেশে আনার ব্যবস্থা করতে। অন্তত সেই সান্তনা নিয়ে তারা আজীবন বেঁেচ থাকবেন। হত্যা নাকি আত্মহত্যা সুষ্ঠু তদন্ত করে ব্যবস্থা গ্রহণের কথা জানান স্বজনরা।

জানা যায়, দুই ছেলে এবং এক মেয়ে নিয়ে টেক্সাসের ডালাসের অ্যালেন হোমে বসবাস করতেন বাংলাদেশি দম্পতি তাওহীদুল ইসলাম ও আইরিন ইসলাম। আইরিন ইসলামের মা আলতাফুন নেসা বাংলাদেশের পাবনা থেকে এসেছিলেন মেয়ের কাছে থাকার জন্যে। দেশে ফেরার কথা থাকলেও, করোনার কারণে আটকা পড়েছিলেন তিনি।

নিউ ইয়র্কে বসবাসকারী কমিউনিটি অ্যাকটিভিস্ট ও পাবনার বাসিন্দা গোপাল সান্যাল বলেন, ‘মর্মান্তিক ঘটনাটির শিকার পরিবারটির বাড়ি পাবনার দোহারপাড়ার বিখ্যাত হায়দার পরিবারের সদস্য। দোহারপাড়ার বিখ্যাত ব্যক্তি জিয়া হায়দার, রশিদ হায়দার ওনাদের আতœীয়।এ ঘটনা কিছুতেই মেনে নিতে পারছি না।’

নিহত আলতাফুনেচ্ছার ভাই আব্দুল হান্নান তালুকদার বলেন, তারা সবাই ছিল খুবই নম্্র ভদ্র, তারাতো আত্মহত্যা করার কথা নয়। সরকারের কাছে সুষ্ঠু তদন্ত চাই, সেই সাথে মরদেহ দেশে আনার ব্যবস্থা করার আহবান জানান।

নিহত আলতাফুনেচ্ছার ছেলে আবুল কালাম আজাদ হিরোক বলেন, মিডিয়ায় যেটা আসছে তারা নাকি আত্মহত্যা করেছে বিষয়টি মেনে নিতে পারছিনা।


পাবনার জেলা প্রশাসক মো: কবির মাহমুদ বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে আমি অবগত হয়েছি, পরিবার থেকে এখনো কোন বিষয় জানায়নি আমাদের। যদি তারা লিখিত বিষয় জানান, তাহলে তাদের আবেদন অনুযায়ী সরকারিভাবে যেটা সহযোগিতা করার সেটা করা হবে।

 

 


এই বিভাগের আরও খবর
ব্রেকিং নিউজ
x
ব্রেকিং নিউজ
x