আজ ৩৮ নম্বর স্প্যানের মাধ্যমে পদ্মাসেতু স্পর্শ করবে মাওয়া প্রান্ত

প্রকাশিত: ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ , নভেম্বর ২১, ২০২০

দেশের সর্ববৃহৎ মেঘা প্রকল্প পদ্মাসেতুর কাজ দূত গতিতেএগিয়ে চলছে। প্রতি সপ্তাহে পিলারের উপর বসছেএকটি স্প্যান। আজ ১ এবং ২ নম্বর পিলালের উপর ৩৮ নম্বর স্প্যান বসানোর মাধ্যমে পদ্মাসেতু স্পর্শ করবে মুন্সীগঞ্জের মাওয়ার মাটি। এর মাধ্যমে দৃশ্যমান হবে পদ্মাসেতুর ৫ হাজার ৬০০মিটার। মুন্সীগঞ্জবাসী অধীরআগ্রহেঅপেক্ষাকরছে সেইক্ষনের সাথে নিজেকে জড়িয়ে রাখতে।

আজ সকাল সাড়ে ৯ টায় মুন্সীগঞ্জের মাওয়া কনস্ট্রাকশন ইয়ার্ড থেকে ৩ হাজার ৬ শতটন ধারণ ক্ষমতার তিয়ান – ই ভাসমান ক্রেনটি দিয়েধূসর রঙ্গের ১৫০ মিটার দৈর্ঘের ৩ হাজার ১৪০ টন ওজনের স্প্যানটি নির্দিষ্ট পিলারের নিকট নিয়ে রওনা হবে। ১ এবং ২ নম্বর পিলারটি মাওয়া প্রান্তে ভুমিতে থাকায় পিলারের পাশ^বর্তী স্থানের মাটি কেটে ক্রেনটি সামনে নেবার ব্যবস্থা করাহয়।

পদ্মাসেত ুনির্মানের শুরুতে দেশী-বিদেশী ষড়যন্ত্র, দূর্ণীতির অভিযোগআর বিশ^ ব্যাংকের অর্থ প্রদান থেকে সরে যাওয়া সহ কোন প্রতিবন্ধকতা বাধা হতে পারেনি পদ্মাসেত ুনির্মানে । সকল ষড়যন্ত্রেও জাল ছিন্ন করে ২০১৭ সালে প্রধানমন্ত্রী জাতির জনকের কণ্যা শেখ হাসিনা নিজস্ব অর্থায়ানে সেত ুনির্মানের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।দ্রূতগতিতেএগিয়ে চলে সেতুনির্মানের কাজ। চলতি বছর করোনা আর পদ্মার তীব্র স্রোতএবং ভাঙ্গন আবার নির্মান কাজে বাধা হয়ে দাড়ায়। সেত ুনির্মাতা ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানএবং সেতু বিভাগের কর্র্তৃপক্ষের অক্লান্ত পরিশ্রমে নির্মান কাজ এগিয়ে চলে। স্প্যান বসানোর কাজ চারমাস বন্ধের পর গত অক্টোবর থেকে প্রায় প্রতি সপ্তাহে একটি স্প্যান বসানো হচ্ছে।

চলতি মাসের শেষ সপ্তাহে ১০ ও ১১ নম্বর পিলারের উপর বসবে ৩৯ নম্বর স্প্যান আর ১০ডিসেম্বরের মধ্যে মাঝ নদীর উপর ৪০ এবং ৪১ নম্বর স্প্যান বসানো হলে পুরো পদ্মা সেতুর অবকাঠামো দৃশ্যমান হবে।২০২১ সালের মধ্যে দক্ষিণাঞ্চলের ২১ জেলার জনগনের দীর্ঘদিনের লালিত স্বপ্ন বাস্তবায়িত আর যাতায়াতের দূর্ভোগের অবসান হবে।