ঈশ্বরদী ও লালপুর উপজেলার সীমানা জটিলতা দীর্ঘদিনেও সমাধান হয়নি

প্রকাশিত: ৪:০১ অপরাহ্ণ , অক্টোবর ২০, ২০২০

 ঈশ্বরদী (পাবনা) সংবাদদাতাঃ ঈশ্বরদী বিমান বন্দর এলাকার বাসিন্দা আকবর হোসেন জানালেন ‘ ভোট দেই ঈশ্বরদীতে, কিন্তু বাড়ির খাজনা দেই লালপুরে। এলাকার রাস্তাঘাটসহ অন্যান্য উন্নয়নের বিষয়ে লালপুর উপজেলার সংশ্লিষ্ট বিভাগে গেলে বলা হয় ঈশ্বরদীতে যান। আবার ঈশ্বরদীতে গেলে লালপুর যাওয়ার কথা বলা হয়। এভাবেই ফুটবলের মতো এপ্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে যুগ যুগ ধরে ঘুরপাক খাচ্ছি। এলাকার কোন উন্নয়ন হচ্ছে না।’ এই প্রতিক্রিয়া শুধু সামাদের নয়, দীর্ঘদিনেও সীমানা নির্ধারণ না হওয়ায় এলাকার সকলেই চরমভাবে বিক্ষুব্ধ।

জানা গেছে, ঈশ্বরদী উপজেলায় ঈশ্বরদী নামে কোন মৌজা নেই। ভুলবশত: ‘পুরাতন ঈশ্বরদী’ এলাকা ইউনিয়ন করে লালপুর উপজেলার অংশ হিসেবে অর্ন্তভূক্ত হয়। এলাকাবাসীর বঞ্চনার এখান থেকেই সূচনা। যুগের পর যুগ অতিবাহিত হলেও সীমানা নির্ধারণের সমস্যার সমাধান হয়নি।
এদিকে গত ১৮ই অক্টোবর ঈশ্বরদী ও লালপুরের সীমানা সংলগ্ন এলাকা ঈশ্বরদীর সাঁড়া ইউনিয়নের ভাদুর বটতলায় লালপুর ও ঈশ্বরদী উপজেলার সীমানা জটিলতায় উন্নয়ন বঞ্চিত এলাকার মানুষ, সীমানা নির্ধারণের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত করেছে। কয়েকটি গ্রামের সুবিধা বঞ্চিত মানুষ ও এলাকার জনপ্রতিনিধি এই মানববন্ধনে অংশগ্রহন করেন। এসময় বক্তারা বলেন, ঈশ্বরদী ও লালপুর উপজেলার সীমানা নিয়ে জটিলতার কারণে উন্নয়ন ও সুবিধা বঞ্চিত এলাকার মানুষ। আশনা, ভাদুর বটতলা, বিদিক মোড়, বিমান বন্দর, ডহরশৈলাসহ পুরাতন ঈশ্বরদী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার সীমানা জটিলতার জন্য সংশ্লিষ্ট বিভাগের তীব্র নিন্দা জানানো হয়। অতি দ্রুত সীমানা নিয়ে জটিলতার সমাধান সা করে হলে অন্যথায় বৃহত্তর আন্দোলনের কর্মসূচী গ্রহন করা হবে বলে ঘোষণা দেয়া হয়।